মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে জুরাছড়ি

উপজেলার নামকরণ:

       পাহাড় পরিবেষ্টিত একটি দূর্গম অঞ্চলের নাম জুরাছড়ি। চাকমা ভাষায় “জুর” অর্থ ঠান্ডা, “ছড়ি” অর্থ ছড়া। উপজেলা সদরের দক্ষিণে সলক নদীর উজানে জুরাছড়ি নামক একটি ছড়া রয়েছে। এ ছড়ার পানি খুবই ঠান্ডা। এ জুরাছড়ি ছড়ার নামই এ উপজেলার নামকরণ হয়েছে জুরাছড়ি। জুরাছড়ি ছিল বরকল থানার আওতাধীন একটি ইউনিয়ন। পরবর্তীতে জুরাছড়ি ইউনিয়নকে ৪টি ইউনিয়নে ভাগ করে ১৯৮০খ্রিঃসালে ১৮নভেম্বর জুরাছড়িকে মনোন্নীত থানা হিসেবে ঘোষণা করা হয়। পরবর্তীতে প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাসের অংশ হিসেবে ১৯৮৩ সালের ২৫জুলাই উপজেলাই উন্নীত করা হয়।

 

উপজেলার পটভূমি :

     জুরাছড়ি উপজেলা (রাঙ্গামাটি জেলা) আয়তন: ৬০৫.০৪৭ বর্গ কি: মি:। অবস্থান: ২২.৬৬৬৭° উত্তর অক্ষাংশ, ৯২.৩৮৩৩° পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা:‌‌ উত্তরে বরকল, দক্ষিণে বিলাইছড়ি, ও পশ্চিমে রাঙ্গামাটি সদর এবং পূর্বে ভারতের মিজোরাম রাজ্য অবস্থিত।

 

সীমানা :

       উত্তরে: বরকল,

       দক্ষিণে: বিলাইছড়ি,

       পশ্চিমে রাঙ্গামাটি সদর এবং

       পূর্বে ভারতের মিজোরাম রাজ্য অবস্থিত।

 

জনসংখ্যা :

      জুরাছড়ি একটি উপজাতি অধ্যুষিত উপজেলা। এ উপজেলায় চাকমা, মারমা, তঞ্চঙ্গ্যা, পাংখোয়া এবঙ অউপজাতীয় জনগোষ্ঠীর বসবাস। এর মধ্যে চাকমা উপজাতির সংখ্যা সবচেয়ে বেশী। উপজাতীয় লোকসংখ্যা ২১,১৫৮ জন এবং অউপজাতীয় ১,২০৭জন। তন্মধ্যে চাকমাদের সংখ্যা ১৯,৯৮১জন। এখানকার অধিকাংশ জনগণই কৃষিজীবি এবং কিছু সংখ্যক মৎস্যজীবি। শিক্ষিতের হার পুরুষ ৪৭.১%, মহিলা ৩৫.৮৬% এবং গড়ে শিক্ষিতের হার ৪২%।

 

মোট ভোটর সংখ্যা : ১৩,৩৭৬ জন। (২০০৮ সালের ভোটার তালিকা অনুযায়ী)

                    পুরুষ ভোটার     : ৭১৩০ জন।

                    মহিলা            : ৬২৪৬ জন।

গ্রাম: ৫০টি।

 

মৌজা : ১১ টি।

 

ইউনিয়ন : ৪টি। (জুরাছড়ি সদর, বনযোগীছড়া, মৈদং, দুমদুম্যা)।

 

প্রখ্যাতব্যক্তিত্ব: স্বর্গীয় ভুবন জয় মহাজন, সাং-বালুখালীমুখ, মৌজা- জুরাছড়ি, উপজেলা- জুরাছড়ি, জেলা- রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা। নিজ ভুমি দান করে ভূবন জয় সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় ও যক্ষাবাজার প্রতিষ্ঠা করেন।

 

প্রাকৃতিক সম্পদ : এখানকার সেগুন কাঠ খুবই বিখ্যাত।

 

নদ-নদী : সুবলং খাল

 

ব্যবসা-বাণিজ্য : এখানে আদা, হলুদ, তামাক ও কলার ব্যবসা হয়ে থাকে।

 

যোগাযোগ ব্যবস্থা : লঞ্চ, ইঞ্জিন চালিত বোট, নৌকা ও সড়ক পথে যাতায়াত।

 

হাটবাজার: ৫টি ( যক্ষাবাজার, বনযোগীছড়া, শিলছড়ি, ফকিরাছড়ি, বগাখালী)।

 

ছবি


সংযুক্তি



Share with :
Facebook Twitter